রিপোর্ট প্রিন্ট

শেয়ার করুন



৫ম শ্রেণিঃ সংকল্প কবিতার প্রশ্ন উত্তর 2023

সংকল্প কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন, দেখব এবার জগৎটাকে কবিতার প্রশ্ন উত্তর, কবি হাতের মুঠোয় পুরে কি এবং কেন দেখতে চাই, সংকল্প কবিতার মূলভাব, বীরেরা কিসের নেশায় মগ্ন থাকে?, সংকল্প কবিতার প্রশ্ন উত্তর ২০২২, চন্দ্রলোকের অচিনপুরে কারা যেতে চায়,সংকল্প কবিতা pdf, সংকল্প কবিতা ছবি, সংকল্প বাক্য, সংকল্প কবিতা সম্পূর্ণ, সংকল্প কবিতা আবৃত্তি, সংকল্প কবিতা লিরিক্স, সংকল্প কবিতা পঞ্চম শ্রেণি, সংকল্প কবিতা প্রশ্ন উত্তর,

কবিতাটির মূলভাব জেনে নিই।

অসীম বিশ্বকে জানার এক অদম্য কৌতূহল মানুষের। বিশেষত শিশু-কিশােররা উদগ্রীব হয়ে থাকে বিশ্বের অজানা রহস্যকে জানার জন্য। সে জানতে চায় বিশ্বের সকল কিছুকে। আবিষ্কার করতে চায় অসীম আকাশের সকল অজানা রহস্যকে। সে বুঝতে চায় কেন মানুষ ছুটছে অসীমে, অতলে, অন্তরীক্ষে। বীর কেন জীবনকে অনায়াসে বিপন্ন করে, কেন বরণ করে মৃত্যুকে। সে জানতে চায় দুঃসাহসী কেন উড়ছে। তাই কিশাের মনে মনে প্রতিজ্ঞা করে- সে বদ্ধ ঘরে বসে থাকবে না। পৃথিবীটাকে সেও ঘুরে ঘুরে দেখবে।

২ । শব্দগুলাে পাঠ থেকে খুঁজে বের করি, অর্থ বলি এবং বাক্য তৈরি করে বলি ও লিখি।


সংকল্প, বদ্ধ, যুগান্তর, দেশান্তর, বরণ, মরণ-যন্ত্রণা, দুঃসাহসী, চন্দ্রলােক, অচিনপুর, ফেড়ে।

উত্তরঃ

শব্দ

অর্থ

বাক্য

সংকল্প

প্রতিজ্ঞা

ভাল কাজ করার জন্য সংকল্প থাকা দরকার ।

বদ্ধ

বদ্ধ

বদ্ধ ঘরে আলো বাতাস ঢুকতে পারে না ।

যুগান্তর

অন্যযুগ বা সময়

অনেক যুগ-যুগান্তর পার হয়ে আমরা বর্তমানে সময়ে এসেছি ।

দেশান্তর

অন্যদেশ

বড় হলে আমি দেশ-দেশান্তরে ঘুরে বেড়াব ।

বরণ

সাদরে গ্রহণ

পয়লা বৈশাখে আমরা বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিই ।

মরণ-যন্ত্রণা

মৃত্যুর কষ্ট

যারা সাহসী তারা মরণ যন্ত্রণাকে ভয় পায় না ।

দুঃসাহসী

অত্যধিক সাহস আছে এমন

দূঃসাহসী মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছেন ।

চন্দ্রলোক

চাঁদের দেশ

মানুষ এখন চন্দ্রলোক ছাড়িয়ে মঙ্গল গ্রহেও যাত্রা করেছেন ।

অচিনপুর

অচেনা স্থান

এক ছিল অচিনপুরের রাজকন্যা ।

ফেড়ে

ছিঁড়ে

কাঠুরে কুড়াল দিয়ে কাঠটা ফেড়ে ফেলল ।


৩। একই শব্দের বিভিন্ন অর্থ শিখি ও বাক্য তৈরি করি।

শব্দ

অর্থ

বাক্য

সঙ্কল্প

প্রতিজ্ঞা

ভালো কাজের জন্য মনে মনে প্রতিজ্ঞা করা উচিৎ ।

বদ্ধ

বদ্ধ

বদ্ধ ঘরে থাকলে পৃথিবী সম্পর্কে জানা যায় না ।

দেশান্তর

অন্য দেশ

জানার জন্য দেশ-দেশান্তরে ঘোরা উচিৎ ।

জগৎ

পৃথিবী

মহৎ ব্যাক্তিরা জগতের মঙ্গল চিন্তা করেন ।

ইঙ্গিত

ইশারা

জিয়ান ব্যস্ততার ইঙ্গিত দিয়ে চলে গেল ।

বরণ

সাদরে গ্রহণ

নারী অতিথিদের বারণ করে নিল ।



৪। নিচের প্রশ্নগুলাের উত্তর বলি ও লিখি।


ক. কবি বদ্ধ ঘরে থাকতে চান না কেন?

উত্তরঃ কবির অসীম বিশ্বকে জানার এক অদম্য ইচ্ছা জেগেছে। অজানাকে জানার ও অচেনাকে চেনার আকাঙ্ক্ষা কবির প্রবল। তিনি পাতাল ফেড়ে মাটির তলদেশের রহস্য জানবেন। আবার মহাকাশের রহস্য জানতে অভিযান চালাবেন। এ কারণে কবি বদ্ধ ঘরে থাকতে চান না। 


খ. যুগান্তরের ঘূর্ণিপাকে মানুষ ঘুরছে বলতে কী বােঝ লেখ?

উত্তরঃ যুগ যুগ ধরে মানুষ আবর্তনের মধ্য দিয়ে আজকের সভ্যতায় উপনীত হয়েছে। যুগান্তরের ঘূর্ণিপাকে বলতে বােঝানাে হয়েছে কীভাবে মানুষ যুগ-যুগান্তর পেরিয়ে আজকের সভ্যতায় পৌঁছাল। কীভাবে মনের অজান্তে মানুষ। ছুটে চলেছে বিস্ময়করভাবে। 

গ. চন্দ্রলােকের অচিনপুরে কারা যেতে চায়?

উত্তরঃ চাঁদ পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ। পৃথিবীর কৌতূহলী মানুষ এ রহস্য জানার জন্য চাঁদের বুকে যেতে চায়। চাদের বুকের সমস্ত গােপন রহস্য ভেদ করতে চায়। 

ঘ. কিসের আশায় বীর মরণকে বরণ করছে?

উওরঃ বিশ্বের সব অজানা জিনিস জানার নেশায় মত্ত বীরেরা। তারা মরণকে ভয় পায় না। অজানাকে জানতে তারা তাদের জীবন পর্যন্ত বাজি ধরতে এবং মরণকে বরণ করতে দ্বিধা করে না।

ঙ. কবি হাতের মুঠোয় পুরে কী এবং কেন দেখতে চান?

উত্তরঃ হাতের মুঠোয় পুরে কবি বিশ্ব-জগৎ দেখতে চান। অসীম বিশ্বকে জানার অদম্য কৌতূহল কবির। তিনি আবিষ্কার করতে চান অসীম আকাশের অজানা রহস্যকে। জানতে চান বীররা কেন বরণ করছে মৃত্যুকে, ডুবুরি কেন ডুবছে, দুঃসাহসী কেন উড়ছে। এসব কিছু জানার জন্য কবি বিশ্বকে হাতের মুঠোয় পুরে কাছ থেকে দেখতে চান। 


৫। ক্রিয়াপদের সাধু ও চলিত রূপ শিখি।

চলিত রূপ

সাধু রূপ

আঁকব

আঁকিব

দেখব

দেখিব

ঘুরছে

ঘুরতেছে

মরছে

মরিতেছে

ছুটছে

ছুটিতেছে

আসছে

আসিতেছে

চলছে

চলিতেছে



৬। ক্রিয়ার কাল সম্পর্কে জেনে নিই। 


ক. আমি কাজটি করি।
    আমি কাজটি করেছিলাম। 
    আমি কাজটি করব। 

উপরের বাক্যগুলােতে ব্যবহৃত করি, করেছিলাম ও করব এগুলাে "করা" ক্রিয়াপদটির বিভিন্নরুপ। যে সময়ে ক্রিয়া বা কাজটি সম্পন্ন হয় সেই সময়টিকেই ক্রিয়ার কাল বােঝাননা হয়েছে। যেমন বর্তমান কাল, অতীত কাল, ভবিষ্যৎ কাল। 


খ. নিচের বাক্যের ক্রিয়াবাচক শব্দগুলাের নিচে দাগ দিই।।

উত্তরঃ আমি বড় হয়ে মানুষের জন্য কাজ করতে চাই।
        আমি আমার দক্ষতা অন্যের উপকারে ব্যবহার করি।
        কিশাের বর্ষাকালে তার গ্রামে গাছ লাগাবে।
        তরুণ চিকিৎসক হবে। মানুষের চিকিৎসা করবে। 

গ। নিচের ভবিষ্যৎ কালবাচক ক্রিয়াপদগুলােকে বর্তমান ও অতীত কালবাচক ক্রিয়াপদে রূপান্তর করি।

থাকব, দেখব, শুনব, খাব, বেড়াব, ঘুরব, পড়ব, খেলব, চড়ব, নামব, ধরব, হাসব।

উত্তরঃ

ভবষ্যৎ

বর্তমান

অতীত

থাকব

থাকি

থেকেছিলাম

দেখব

দেখি

দেখেছিলাম

শুনব

শুনি

শুনেছিলাম

খাব

খাই

খেয়েছিলাম

বেড়াব

বেড়াই

বেড়িয়েছিলাম

ঘুরব

ঘুরি

ঘুরেছিলাম

পড়ব

পড়ি

চড়েছিলাম

খেলব

খেলি

খেলেছিলাম

চড়ব

চড়ি

চড়েছিলাম

নামব

নামি

নেমেছিলাম

ধরব

ধরি

ধরেছিলাম

হাসব

হাসি

হেসেছিলাম


৭। শব্দগুলাের বানান লিখি।


সরণ, মরণ, যন্ত্রণা (র-এর পরে ‘ণ’ বসে), বদ্ধ, যুগান্তর, দেশান্তর, বিশ্বজগৎ ইঙ্গিত।


৮। কবির সংকল্পগুলাে লিখি।


উত্তর : জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম সংকল্প' কবিতায় নানা সংকল্প করেছেন। কবির সংকল্পগুলাে হলােঃ-

 ক. কবি জগৎটাকে ঘুরে দেখবেন।

খ. মানুষ এক যুগ থেকে অন্য যুগে কীভাবে বেঁচে থাকছে— তা তিনি জানবেন। 

গ. এক দেশ থেকে অন্য দেশে মানুষ কেন ছুটে বেড়াচ্ছে তা - তিনি জানবেন। 

ঘ. সাহসী মানুষ কীসের নেশায় নানা কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ে  মৃত্যুবরণ করছে- তা তিনি দেখবেন। 

ঙ. সমুদ্রের তলদেশে গিয়ে ডুবুরি কীভাবে মুক্তা সংগ্রহ করে  তা তিনি জানবেন।। 

চ. হাউই বা রকেটে চড়ে কারা চাঁদের অচেনা জগতে পাড়ি| জমায়- তা তিনি জানবেন।

ছ. মঙ্গল গ্রহ থেকে পৃথিবীর বুকে যে ইঙ্গিত আসছে, তা-ও  তার জানা দরকার।

জ. তিনি পাতালের রহস্য উদঘাটন করবেন। 

ঝ. সমস্ত পৃথিবীকে জয় করে তিনি আপন হাতের মুঠোয় পুরে পরীক্ষা করে দেখবেন।

মানুষ চায় রহস্যকে জানতে, অচেনাকে চিনতে। আর সে “কারণেই কবির এ সংকল্প।

৯। আমার সংকল্পগুলাে লিখি। 

উত্তরঃ কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্বকে জানতে তাঁর, সংকল্পের কথা বলেছেন। কবির মতাে আমারও কিছু সংকল্প আছে। 
আমার সংকল্প হলাে লেখাপড়া করে ভালাে মানুষ হওয়া। আমি নিজেকে দেশের সেবায় নিয়ােজিত করব। পড়াশােনা শেষ করে শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেব। আমাদের গ্রামের সাধারণ মানুষকে পড়াশােনায় আগ্রহী করে তুলব। যারা ছেলেমেয়েদের পড়াশােনা করাতে চান না, তাদের বােঝাব। শিক্ষার গুরুত্ব ব্যাখ্যা করে তাদের শিক্ষার প্রতি আগ্রহী করে তুলব। এভাবে একদিন আমাদের দেশের মানুষ শিক্ষিত হবে। শিক্ষিত জাতি হিসেবে আমরা বিশ্বের বুকে মাথা তুলে দাঁড়াব। 


১০. কবিতাটি আবৃত্তি করি ও মুখস্থ লিখি।

উত্তরঃ কবিতাটি আবৃত্তি কর এবং মুখস্থ করে লেখ। প্রয়ােজনে শিক্ষকের সহায়তা নাও।

সংকল্প

কাজী নজরুল ইসলাম। 

থাকব না কো বদ্ধ ঘরে 
দেখব এবার জগৎটাকে, 
কেমন করে ঘুরছে মানুষ। 
যুগান্তরের ঘূর্ণিপাকে। 
দেশ হতে দেশ দেশান্তরে 
ছুটছে তারা কেমন করে, 
কিসের নেশায় কেমন করে 
মরছে যে বীর লাখে লাখে,
..................
এভাবে পুরাে কবিতাটি আবৃত্তি কর ও খাতায় লেখ।



Tag...
সংকল্প কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন, দেখব এবার জগৎটাকে কবিতার প্রশ্ন উত্তর, কবি হাতের মুঠোয় পুরে কি এবং কেন দেখতে চাই, সংকল্প কবিতার মূলভাব, বীরেরা কিসের নেশায় মগ্ন থাকে?, সংকল্প কবিতার প্রশ্ন উত্তর ২০২২, চন্দ্রলোকের অচিনপুরে কারা যেতে চায়,সংকল্প কবিতা pdf, সংকল্প কবিতা ছবি, সংকল্প বাক্য, সংকল্প কবিতা সম্পূর্ণ, সংকল্প কবিতা আবৃত্তি, সংকল্প কবিতা লিরিক্স, সংকল্প কবিতা পঞ্চম শ্রেণি, সংকল্প কবিতা প্রশ্ন উত্তর,

0/আপনার মতামত জানান

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন